About Founder

ALHAZ MD. SHAFIUDDIN
FOUNDER

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম
বড়ইবাড়ী একে ইন্সটিটিউশন এন্ড কলেজে একটি ডাইনামিক ওয়েব সাইট চালু করা হয়েছে যা অত্যন্ত যুগোপযোগী ও বাস্তবধর্মী। এ ওয়েবসাইট চালু করার ফলে তথ্য-প্রযুক্তির যুগের সাথে তাল মিলানো ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া সহজতর হবে এবং যে কেউ কলেজের তথ্যসমূহ সহজে অবগত হতে পারবে। তাই এ ওয়েব সাইট চালু করতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত এবং যারা এ ওয়েব

Read More...

সাইট চালু করতে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন তাদের জানাই কৃতজ্ঞতা।
বড়ইবাড়ী একে ইন্সটিটিউশন এন্ড কলেজটি গাজীপুর জেলাধীন কালিয়াকৈর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটি একটি সুন্দর, মনোরম, নিরিবিলি, শান্ত পরিবেশে প্রতিষ্ঠিত। এখানাকার প্রকৃতি ও পরিবেশ আমাদের একান্ত আপন। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি অত্যন্ত সুনাম ও কৃতিত্বের সাথে পরিচালিত হয়ে আসছে। ক্রীড়া, সাহিত্য-সংস্কৃতি এবং পরীক্ষায় ভাল ফলাফলের জন্য এই প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন পর্যায়ে স্বীকৃতি লাভ করেছে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে প্রতিষ্ঠানের সম্মাণীত প্রতিষ্ঠাতা ও তাঁর উত্তরসূরীগণ স্কুল ও কলেজের জন্য বহুতল ভবন নির্মান এবং ২ একরের অধিক ভূমি, স্থায়ী ও চলতি তহবিলে পর্যাপ্ত অর্থ, বই, চেয়ার, ব্যাঞ্জ, টেবিল, ফ্যান ও কম্পিউটার প্রদান করে এর অগ্রগতিকে তরান্বিত করেন। প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান সভাপতি মহোদয়ের প্রত্যেক্ষ দিকনির্দেশনায় এবং ইন্সটিটিউশনের নিষ্ঠাবান শিক্ষকদের তত্ত্ববধানে মাননীয় সংসদ সদস্য মহোদয়ের প্রত্যেক্ষ নির্দেশনায় প্রতিষ্ঠানটি অধিকতর সুষ্ঠ ও সুশৃংখলভাবে পরিচালিত হচ্ছে। তথ্য-প্রযুক্তির যুগে প্রবেশ ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে কলেজের একটি ডাইনামিক ওয়েবসাইট চালু, ইন্টারনেট সংযোগ এবং একটি কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। কলেজে একটি মনোরম একাডেমিক ভবন নির্মান করা হয়েছে। বর্তমান সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে ভিশন ২০২১ এর সাথে আমরা বড়ইবাড়ী একে ইন্সটিটিউশন এন্ড কলেজ পরিবারও একত্বতা প্রকাশ করছি। এই লক্ষ্য পূরণে ইতিমধ্যেই আমরা শ্রেণি কক্ষে প্রজেক্টর ও ল্যাপটপের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মাঝে ডিজিটাল পদ্ধতিতে পাঠদান প্রক্রিয়া চালু করা হয়েছে। আধুনিক ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব, বিজ্ঞান ক্লাব, রোভার-স্কাউট প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এছাড়াও খেলাধুলা ও সাহিত্য সংস্কৃতি চর্চা অব্যাহত রয়েছে। বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে ডিজিটাল হাজিরা চালু করা হয়েছে। পরিবেশগত শৃঙ্খলা নিশ্চিত করণে প্রতিষ্ঠানকে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার আওতাভুক্ত করা হয়েছে। অনলাইন ব্যাংকিং সহ তথ্য প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারে ডায়নামিক ওয়েবসাইট চালু করা হয়েছে। এখন থেকে আমাদের ছাত্র/ছাত্রী, অভিভাবক ও শিক্ষক/শিক্ষিকা তাদের সকল তথ্য ঘরে বসেই ওয়েব সাইট থেকে পেয়ে যাবেন। এ ওয়েবসাইটটিতে যে তথ্য ও উপাত্ত থাকবে তা অবাধ তথ্য পাওয়ার অধিকার নিশ্চিত করবে এর ফলে একদিকে আমরা ইনফরমেশন হাইওয়ে উঠতে সক্ষম হব। পাশাপাশি আমাদের কাজে স্বচ্ছতা, গতিশীলতা, জবাবদিহিতা সেবার মান বৃদ্ধি পাবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।
ভাল ফলাফলের নিশ্চয়তা বিধানের প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠানটি আরও সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় আমি বদ্ধপরিকর। আশা করছি কলেজটি অত্র এলাকায় একটি মডেল কলেজে পরিনত হবে ইনশাআল্লাহ।
মহান আল্লাহ আমাদের সহায় হউন
- আমিন। .

Notice Board

-----------------------------------------------------
-----------------------------------------------------
-----------------------------------------------------

Message of Head Teacher

MD. SHAHINUR ISLAM
HEAD TEACHER

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

নিরিবিলি ও মনোরম পরিবেশে নারী শিক্ষার জন্য কালিয়াকৈর উপজেলার বোয়ালী ইউনিয়নের ঢোলসমূদ্র গ্রামে একমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান “ঢোল সমূদ্র বালিকা বিদ্যা নিকেতন”। প্রতি বছর এ প্রতিষ্ঠান থেকে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিক্ষার্থী সাফল্যের সাথে এস.এস.সি পাশ করে দেশের নামী-দামী কলেজে উচ্চ শিক্ষার্থে ভর্তি হয়। দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক/শিক্ষিকার অক্লান্ত পরিশ্রমে ছাত্রীদের এ সাফল্য। উচ্চ শিক্ষা ও সরকারি চাকুরির ক্ষেত্রে এ প্রতিষ্ঠানের ছাত্রীরা বিশেষ অবদান রাখে চলছে। প্রতিষ্ঠানটি মাদক, ধুমপান ও রাজনীতি মুক্ত একটি শিক্ষাঙ্গন। উন্নত ভবিষ্যত, দক্ষ মানুষ ও ভালো শিক্ষার জন্য আপনাদের সন্তানকে এ প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করানোর জন্য অভিভাবকদের আহবান জানাচ্ছি।

Read More...

মো. শাহীনূর ইসলাম
প্রধান শিক্ষক
ঢোল সমূদ্র বালিকা বিদ্যা নিকেতন

ABOUT OUR SCHOOL

History of our Institute

প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠা কাল: 04-12-1986 খ্রি.
পাঠদানের অনুমতি কাল: 01-01-1987 খ্রি.
পাঠদানের স্বীকৃতি: 01-01-1987 খ্রি.
প্রথমএমপিও ভূক্তি: 01-06-1988 খ্র্রি.
ইআইআইএন নং: 1 0 9 0 8 8
রাজধানী ঢাকার অদূরে গাজীপুর জেলা। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য মন্ডিত সবুজ শ্যামল বেষ্টনী ঘেরা এই জেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল কালিয়াকৈর উপজেলায় অবস্থিত আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ..........................। কোমলমতি শিশুদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় শিক্ষিত করার পাশাপাশি তাদেরকে প্রকৃতি প্রেমি, দেশ প্রেমি তথা একজন সু নাগরিক হিসাবে গড়ে তোলার জন্য ০০০০ খ্রি. প্রতিষ্ঠিত হয় .......... বিদ্যালয়। বিদ্যালয়টি ০১ একর জায়গা নিয়ে প্রতিষ্ঠিত। নিজস্ব বহুতল ভবন ছাড়াও এখানে রয়েছে প্রশস্ত খেলার মাঠ, স্কুল ক্যান্টিন এবং সততা স্টোর। শিক্ষার্থীরা নিয়মিত ক্লাশের ফাকে ফাকে লাইব্রেরীতে জ্ঞানার্জন করে অথবা কমনরুমে ইনডোর খেলাধুলায় ব্যস্ত থাকে। এছাড়া ওয়াক্তিয়া নামাজের জন্য রয়েছে একটি নামাজঘর। একদিকে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞানাগারে বিভিন্ন বিষয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে নিজেদেরকে ভবিষ্যতের জন্য প্রস্তুত করছে, অন্যদিকে সকলের জন্য উন্মুক্ত আইসিটি ডিজিটাল ল্যাবে আধুনিক প্রযুক্তির নানান খুটিনাটি বিষয় নিয়ে কম্পিউটার প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সকল শিক্ষার্থী আগামীর পরিবর্তিত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলার জন্য নিজেদেরকে প্রস্তুত করার সুযোগ পাচ্ছে।
Read More...

Al contrario del pensamiento popular, el texto de Lorem Ipsum no es simplemente texto aleatorio. Tiene sus raices en una pieza cl´sica de la literatura del Latin, que data del año 45 antes de Cristo, haciendo que este adquiera mas de 2000 años de.

Message of SMC Chairman

ALHAZ MD. SHAFIUDDIN
Chairman of SMC

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর, ঢাকা শিক্ষা বোর্ড এর নিয়ম কানুনের আওতায় প্রতিষ্ঠিত ও সুপরিচালিত ঐতিহ্যবাহী একটি প্রতিষ্ঠান। এটি শিক্ষা বিস্তারে প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করে আসছে। জাতির সু্শিক্ষা, আর্থসামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিকাশের লক্ষ্যে ঐতিহ্যবাহি এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান যুগ, বিজ্ঞানের যুগ। একবিংশ শতাব্দীতে বিজ্ঞান ছাড়া মানব জীবন কল্পনা করা যায় না। বিজ্ঞানের যে আবিষ্কার বিশ্বের এক প্রান্তের মানুষকে অপর প্রান্তের মানুষের অতি নিকটে নিয়ে এসেছে তা হচ্ছে ইন্টারনেট। বর্তমান যুগ গ্লোবালাইজেশন এর যুগ যার মধ্য দিয়ে সমগ্র পৃথিবী হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ওয়েব সাইট–এ নিজের পরিচয় এবং কর্মকাণ্ড সহজেই মানুষের দোর গোড়ায় পৌঁছে

Read More...

দিয়েছে। এক্ষেত্রে গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলায় অবস্থিত ঐতিয্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান................................. কোন অংশে পিছিয়ে নেই। অত্যন্ত আনন্দের সাথে জানানো যাচ্ছে যে, অত্র প্রতিষ্ঠান অনলাইন ভার্সনে যাত্রা শরু করেছে। অত্র প্রতিষ্ঠানের কর্মক্রম ওয়েব সাইটে প্রকাশিত হচ্ছে। আমাদের সকল কর্মকান্ড ওয়েব সাইটের মাধ্যমে প্রকাশ পেলে প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় তথ্য শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের কাছে দ্রুত পৌঁছে দেয়া সম্ভব হবে এবং ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা সহজে অবহিত হতে পারবেন। ............................................. ওয়েবসাইট খুলে সরকারের ডিজিটালাইজেশন কার্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে এবং স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে অংশীদার হয়েছে। এটা নিশ্চিত যে, আমাদেরকে ইনফরমেশন হাইওয়েতে উঠতে গেলে, চলতে গেলে তথ্য প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। তথ্য প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করণের মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারী দপ্তর, পরিদপ্তর ও অধিদপ্তরের কার্যক্রমে স্বচ্ছতা, গতিশীলতা, জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে ও সেবার মান উন্নত হবে এবং দুর্ণীতি সহনীয় পর্যায়ে নেমে আসবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস। আশা করছি ভবিষ্যতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের ডাটাবেজ তৈরি করে সকল তথ্য সংরক্ষণ করার ব্যবস্থা করা সম্ভব হবে। এছাড়াও এর মধ্যদিয়ে আমাদের শিক্ষার্থীরাই শুধু নয় সমগ্র দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার একটি সামাজিকীকরণ সম্ভব হবে। আমি সহকর্মী, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, সুধিমহল সকলকে ওয়েবসাইট থেকে সেবা গ্রহণে আমন্ত্রণ জানাই। যাদের নির্দেশনা ও ব্যবস্থাপনায় এ ওয়েব সাইটটি বাস্তবায়ন হলো, তাদের সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠায় যাঁদের অবদান রয়েছে তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। এই স্কুলের যে সকল শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারি মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন সে সকল বীর সন্তানদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি। এই প্রতিষ্ঠানটির উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি। কর্মরত সকল শিক্ষক,কর্মচারি ও হিতৈষী ব্যক্তিবর্গকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। একই সাথে আমাদের প্রতিষ্ঠানটি সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

Why Students Choose Us

Digital Attendance

Pineapple

‘আগামীর স্মার্ট বাংলাদেশ’ এই মন্ত্রে উদ্বুদ্ধ হয়ে বড়ইবাড়ী একেইউ ইন্সটিটউশন এন্ড কলেজ শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দৈনন্দিন উপস্থিতির তথ্য সংগ্রহে অত্যাধুনিক স্মার্ট বায়োমেট্রিক এটেনডেন্স সিস্টেম চালু করেছে। এর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বরত সকলের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি পেয়েছে যা প্রতিষ্ঠানের দৈনন্দিন কার্যক্রম আরো গতিশীল করবে। একই সাথে শিক্ষার্থীদের জন্যও ডিজিটাল হাজিরা চালুর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এর ফলে শিক্ষকবৃন্দ শ্রেণিকক্ষে কিছু বাড়তি সময় শিক্ষার্থীদের উন্নয়নে ব্যায় করতে পারবেন। অন্যদিকে শিক্ষার্থীরাও আধুনিক প্রযুক্তির সাথে খাপ খাইয়ে ভবিষ্যতের স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে নিজেদের প্রস্তুত করার সুযোগ পাচ্ছে।

CCTV Monitoring

Pineapple

বড়ইবাড়ী একেইউ ইন্সটিটউশন এন্ড কলেজে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে ও বহিরাগতদের অনুপ্রবেশ রোধে রয়েছে সিসিটিভি মনিটরিং ব্যবস্থা। প্রতিদিন এ্যাসেম্বেলী থেকে শুরু করে শ্রেণি কক্ষের সকল শ্রেণি কার্যক্রম সিসিটিভি দ্বারা নিয়মিত মনিটরিং করা হয়। ফলে শিক্ষার্থীদের মানোন্নয়নে সংশ্লিষ্ট সকলে তৎপর থাকেন। দূর্বল শিক্ষার্থীদের প্রতি শিক্ষকবৃন্দের বিশেষ দৃষ্টি থাকে। শিক্ষার্থীরা অহেতুক এদিক সেদিক ঘোরাঘুরি থেকে বিরত থেকে পাঠ্যক্রমে মনোযোগী হয়। শ্রেণি কর্যক্রমের বাহিরে প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গণে খেলাধুলা এবং বিজ্ঞানাগারে নিত্য নতুন আবিস্কারের প্রতিযোগিতায় অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা সর্বদাই নিজেদের নিয়োজিত রাখে।

EMS Software

Pineapple

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানের সহযোগী হিসাবে বড়ইবাড়ী একেইউ ইন্সটিটউশন ও কলেজ প্রতিষ্ঠানের দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনার জন্য অত্যাধুনিক এডুকেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সফটওয়ার ব্যবহার করছে। এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ভর্তি, বেতনাদি ও যাবতীয় ফি, পরীক্ষার রুটিন, এ্যাডমিট কার্ড, সিটপ্ল্যান, ফলাফল, দৈনন্দিন হাজিরার তথ্য প্রভৃতি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অভিভাবকগন জানতে পারছেন। ফলে শিক্ষার্থী-অভিভাবক-শিক্ষক সকলের মাঝে একটি অদৃশ্য বন্ধন দৃঢ় হচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বা নোটিশ সমূহ sms এর মাধ্যমে শিক্ষার্থী/অভিভাবকগণ/শিক্ষকবৃন্দ সকলের নিকট পৌঁছে যাচ্ছে অতিদ্রুত-প্রশাসনিক কাজ হয়েছে গতিশীল।

SMS Communications

Pineapple

অত্যাধুনিক এডুকেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সফটওয়ার ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি পুরোপুরি অনলাইনের যুগে প্রবেশ করেছে। এর ফলে এখন থেকে অভিভাবকবৃন্দ যে কোন স্মার্ট ফোন থেকেই শিক্ষার্থীদের ভর্তি, শ্রেণিকক্ষে দৈনন্দিন উপস্থিতি, পরীক্ষার ফলাফল, বেতনাদি পরিশোধ প্রভৃতি তথ্য ঘরে বসেই মনিটিরিং করার সুযোগ পাচ্ছেন। sms এর মাধ্যমে জানতে পারছেন প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সমূহ। যেমন যে কোন পরীক্ষার ফলাফল অথবা বেতনাদি পরিশোধের সাথে সাথে অভিভাবকের নিকট sms এর মাধ্যমে পৌঁছে যাচ্ছে তথ্য। অভিভাবক সমাবেশ অথবা বিশেষ কোন কার্যক্রমের তথ্যও জেনে যাচ্ছেন sms এর মাধ্যমে –যা আধুনিকতার বহিঃপ্রকাশ মাত্র।

Some of our Happy Memories

Find us in Google

-----------------------------------

Thankyou for visit our website